১১+টি আরিফ আজাদের বই Pdf Download - Arif Azad all books pdf download

১১+টি আরিফ আজাদের বই Pdf Download - Arif Azad all books pdf download

বন্ধুরা, আজকের এ পোস্টে আরিফ আজাদের সকল বই Pdf Download লিংক দেওয়ার চেষ্টা করব। Arif Azad all books pdf download link is given below. আরিফ আজাদ হচ্ছে এক ভালবাসার নাম, যার প্রত্যেক বই আপনার ভাল লাগতে বাধ্য। তিনি খুব যত্ন নিয়ে বই লিখেন ও বই মেলা আসলে তার নতুন বইগুলো বাজারে প্রকাশ করেন। তার বই নিয়ে বহু আলোচনা - সমালোচনা হয় প্রায়সই। বইগুলো পিডিএফ ডাউনলোড করে পড়বেন ঠিকই, কিন্তু কিনতে ভুলবেন না। 

১১+টি আরিফ আজাদের বই Pdf Download - Arif Azad all books pdf download


আরিফ আজাদের বই সমূহ পিডিএফ কালেকশন:

আরিফ আজাদের লেখা বই সমূহ এর তালিকাঃ- 

  1. নবী জীবনের গল্প - আরিফ আজাদ Pdf 
  2. আসমানের আয়োজন আরিফ আজাদ Pdf 
  3. প্রত্যাবর্তন আরিফ আজাদ pdf  || prottaborton pdf By Arif Azad
  4. মা মা মা বাবা বই pdf রিভিউ || ma ma ebong baba by arif azad pdf book
  5. সত্যকথন আরিফ আজাদ pdf Download || Shottokothon by arif azad pdf book
  6. আরজ আলী সমীপে pdf Download by Arif Azad
  7. গল্পগুলো অন্যরকম
  8. বেলা ফুরাবার আগে Pdf Download -আরিফ আজাদ(২০২০)
  9. প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ২ Pdf download || Paradoxical Sajid 2 Pdf Download
  10. প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ১ Pdf download || Paradoxical Sajid 1 Pdf Download
  11. জীবন যেখানে যেমন আরিফ আজাদ Pdf Download

আরিফ আজাদের এই বই সমূহ এর pdf links and Reviews:

নবী জীবনের গল্প - আরিফ আজাদ Pdf Download

Download

এখন আমাদের জীবনে সবচেয়ে বেশি যে জিনিসটার অনুপস্থিতি তা হল দোয়া। দোয়া হল সকল নবী রাসুলের সুন্নাত‌। দোয়া মানে আল্লাহর কাছে চাওয়া। হাত তুলে নিজের প্রয়োজন আল্লাহকে খুলে বলা। নিরবে, নিভৃতে গুন গুন করে আল্লাহর কাছে নিজের সকল চাহিদা, আশা, আকাঙ্ক্ষা তুলে ধরা। জীবনের সকল মুহূর্তে আল্লাহর কাছে দোয়া করতে হবে। এমনকি জীবন যখন অঢেল সুখে ভরে উঠবে, তাতে যখন থাকবেনা কোন দুঃখ-দুর্দশা, হতাশা গ্লানি, তখনো আল্লাহর কাছে দোয়া করতে হবে। বলতে হবে 'ইয়া আল্লাহ, আমার এই সুখ কে আপনি দীর্ঘায়িত করুন। এটাকে আমার জন্য পরীক্ষা বানাবেন না। নিশ্চয়ই, আমি খুব দুর্বল এক বান্দা। আপনার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার ক্ষমতা আমার নেই।
দুনিয়ায় আমাদের অনেক কিছু দরকার। চলুন সেই দরকার গুলোর একটি তালিকা করে ফেলি। আল্লাহর কাছে দুনিয়ায় কি কি চাই, আখিরাতে কি কি চাই, আমার বাবা মায়ের জন্য কি চাই, আমার ভাই বোন, স্ত্রী-সন্তানদের জন্য কি চাই তার একটি পূর্ণাঙ্গ তালিকা প্রস্তুত করি। তালিকা ধরে ধরে আল্লাহর কাছে চাই। আল্লাহকে বলি 'ইয়্যাকা না'বুদু ওয়া ইয়্যাকা নাস্তাঈন, আপনার ইবাদত করি আর আপনার কাছেই সাহায্য চাই। আপনি ছাড়া আমাদের আর কোন মন গত্যন্তর নেই। কেউ নেই যার কাছে কিছু চাওয়া যায়। কেউ নেই যে আমাদের কিছু দিতে পারে। তাই আপনার কাছে হাত পেতেছি, মালিক। আপনি আমাদের চাওয়া গুলো পূরণ করুন।.
নবী জীবনের গল্প - আরিফ আজাদ Pdf Download



প্রত্যাবর্তন আরিফ আজাদ pdf download || prottaborton pdf By Arif Azad

: Click here to Download

এবার ঘুম ভাঙুক
চোখ মেলে দেখা হোক বাইরে আপেক্ষমাণ
নতুন দিনের পৃথিবী ।
নতুন ভোরের সোনারঙা রোদে
ঝেড়ে ফেলা যাক একজীবনের সমস্ত ক্লান্তি
এবার ভিন্ন কিছু হোক
জাগরণের এই জাগ্রত জোয়ারে
এবার নতুন করে লেখা হোক জীবনের জ্যামিতি
বেলা ফুরাবার আগে
আজ তবে ফেরা হোক নীড়ে
প্রত্যাবর্তন আরিফ আজাদ pdf download || prottaborton pdf By Arif Azad


মা মা মা বাবা বই pdf রিভিউ || ma ma ebong baba by arif azad pdf book

মা মা মা বাবা বই pdf রিভিউ || ma ma ebong baba by arif azad pdf book
বই: মা মা মা এবং বাবা
সম্পাদনা: আরিফ আজাদ
গল্পের নাম: পুরস্কার...
ঘটনাটি এক ‘আরব যুবকের। কোনাে এক কারণে হঠাৎ সে তার চাকরিটা ছেড়ে দেয়। তখন অফিস থেকে সে কিছু নগদ অর্থ পায়; সাকুল্যে বত্রিশ হাজার দিনার। চাকরি ছাড়ার পরে বলা চলে সেই অর্থটুকুই ছিল তার একমাত্র সম্বল।
হজের কিছুদিন আগের ঘটনা। হজযাত্রীরা তখন হজে যাওয়ার জন্য প্রস্তুত হচ্ছিল। ছেলেটি যখন বাড়িতে এসে তার বাবা-মা’কে অফিস থেকে প্রাপ্ত টাকার কথা জানাল। তারা আবদার করলেনে, ‘বাবা, আমরা চাই, এই টাকা দিয়ে তুমি আমাদেরকে হজ আদায় করাও।

ছেলের কাছে বাবা মা একটা আবদার করল আর ছেলে সেটা রাখবে না? ছেলেটি কোনাে রকম দ্বিধা না করে সাথে সাথে বলল, “ঠিক আছে, এবার আপনাদের দু’জনকেই হজে পাঠাবাে, ইন শা আল্লাহ।
যদিও ওই মুহূর্তে টাকাগুলাের খুব দরকার ছিল তার; তবুও পিতা-মাতার ইচ্ছেকে সম্মান না করে পারল না। এরপর ছেলেটি নিজেই একটা ট্রাভেল এজেন্সির সাথে যােগাযােগ করে তাদের হজে যাওয়ার সকল বন্দোবস্ত শেষ করল। অবশেষে বাবা-মা’র হজে যাওয়ার স্বপ্ন বাস্তবে রূপ নিল। হজ সম্পন্ন করে দুসপ্তাহ পর তারা বাড়িও ফিরলেন।
যদিও সে সময়ে ছেলেটির আর্থিক অবস্থা ছিল নিতান্তই খারাপ, তবুও টাকার জন্য তার কোনাে আফসােস ছিল না; বরং বাবা-মা’র আবদার রক্ষা করতে পেরে এক ধরনের ভালােলাগা কাজ করছিল তার মধ্যে। এভাবেই দিনগুলাে কেটে যাচ্ছিল।
হঠাৎ একদিন আগের অফিসের ম্যানেজার তাকে ফোন করে জানালেন যে, দীর্ঘদিন চাকুরি করার সুবাদে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে সে এককালীন কিছু টাকা পাবে এক আনুরােধ করলেন সময়মতাে টাকাটা উঠিয়ে নিতে।

(((((

জবাব আরিফ আজাদ pdf download

জবাব আরিফ আজাদ পিডিএফ ডাউনলোড লিংক- click here download jobab arif azad book
))))

ছেলেটি ভাবল, অল্প কিছু টাকা পাওয়া যবে হয়তাে। কারণ, আগেও সে টাকা নিয়েছে। কিন্তু সেই অল্প টাকাও তার কাছে অনেক কিছু। এরপর সে গিয়ে ম্যানেজারের সাথে দেখা করল। তিনি একটি খাম হাতে দিলেন।
ছেলেটি ধন্যবাদ জানিয়ে বাড়ি চলে এলাে। বাড়িতে এসে খামটি ছিড়ে ভেতরে একটি চেক দেখতে পেল। অবাক হয়ে সে দেখল, বাবা মায়ের হজের জন্য যে পরিমাণ দিনার সে খরচ করেছে, এখানে ঠিক সে পরিমাণ দিনারই তাকে দেওয়া হয়েছে। ছেলেটি ‘আলহামদু লিল্লাহ’ বলে আল্লাহ সুবহানাহু ওয়া তা‘আলার কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করল। সত্যি তিনি মহিমান্বিত ।

জীবন যেখানে যেমন আরিফ আজাদ Pdf Download ২০২১

জীবন যেখানে যেমন Pdf Download আরিফ আজাদ ২০২১

মানুষের জিবনে অনেকগুলো বসন্ত আসে।
আবার ঝরে ও জায়,
কিন্ত মা বাবা বসন্তের মতো আসে না।
শুধু একবারই আসে।
মা মা মা এবং বাবা বইটা এমন একটা বই যে পড়বে সে অন্যকে পড়ার জন্য আহবান জানাবেই।
বইয়ের কথা এত সুনন্দর ভাবে প্রকাশ করা হয়েছে মনে হয় যে বইয়ের কথাগুলোর সাথে মিশে যাই।
এমন কোন হৃদয় নাই যে এই বইটি পড়বে তার দুই চোখ ভেয়ে দুফোটা অশ্রু গরাবে না।
লেখক, আরিফ আজাদের প্রতি চির কৃতজ্ঞ এমন একটি বই উপহার দেয়ার জন্য।

Download

সত্যকথন আরিফ আজাদ pdf Download || Shottokothon by arif azad pdf book

Download

সত্যকথন আরিফ আজাদ pdf Download || Shottokothon by arif azad pdf book


ইসলামবিদ্ধেষের কদর্য চেহারার সাথে বাংলাদেশের মানুষের আনুষ্ঠানিক পরিচয় হয় ২০১৩ এর শাহবাগ আন্দোলনের সময়। বাকস্বাধীনতা, মুক্তচিন্তা ও প্রগতিশীলতার নামে বিভিন্ন ব্লগে যে ভয়ঙ্কর ইসলামবিদ্েষ ছড়ানো হচ্ছে, এ ব্যাপারটা আমাদের অধিকাংশেরই ধারণার বাইরে ছিলো। ঘৃণার এই মাত্রা ও তীব্রতার মুখোমুখি হবার প্রস্তুতি বাংলাদেশের মুসলিমদের ছিলো না, এমন বলাটা ভুল হবে না। বলা যায় ২০১৩ এর পরবর্তী বিভিন্ন ঘটনাপ্রবাহ এই জাতিকে -_সেক্যুলার ও মুসলিম একটি বিশ্বাসের সঙ্কটের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দেয়। ব্যক্তি পরিচয়, জাতীয় পরিচয় এবং রাষ্ট্ ও সমাজের ব্যাপারে বেশ কিছু অমীমাংসিত কঠিন প্রশ্নের জবাব খোঁজা আবশ্যক হয়ে দাঁড়ায়। আপাতদৃষ্টিতে যদিও মনে হতে পারে এ সঙ্কটের শুরু ২০১৩-তে, কিন্তু এ সঙ্কট, এ দ্বন্দের শেকড় প্রোথিত আরও গভীরে।


ইসলাম নিয়ে বাংলাদেশের সমাজের একটি গুরত্বপূর্ণ অংশের আ্যালার্জি বেশ পুরোনো। সংখ্যার বিচারে সংখ্যালঘু কিন্তু সমাজ ও রাষ্ট্রের ওপর প্রভাবের দিক দিয়ে সংখ্যাগ্তরু সমাজের এ অংশটি বিভিন্ন নামে পরিচিত। কেউ তাদের সুশীল সমাজ বলে থাকেন, কেউ বলেন প্রগতিশীল। কেউ বলেন সংস্কৃতিমনা অথবা যুক্তমনা। অনেকে তাদের জাতির বিবেকও বলেন। যে নামেই ডাকা হোক না কেন, বাংলাদেশের মিডিয়া ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনের ওপর এবং সমাজ ও রাষ্ট্রের ডমিন্যান্ট ন্যারেটিভ তৈরির ক্ষেত্রে তাদের আধিপত্য প্রশ্নীতীত। মফস্বল থেকে মেট্রোপলিটনে, শিক্ষিত ও 'আলোকিত' হবার চেষ্টায় ব্যস্ত মানুষেরা জ্ঞতসারে অথবা অজান্তে এই ক্ষুদ্র কিন্তু প্রভাবশালী অংশটির চিন্তাচেতনা দ্বারা প্রভাবিত। |


বেলা ফুরাবার আগে Pdf Download -আরিফ আজাদ(২০২০)

Download

বেলা ফুরাবার আগে Pdf Download -আরিফ আজাদ(২০২০)
"বেলা ফুরাবার আগে" এমন একটি বই যেটি কোনো কোনো মানুষের চিন্তা-চেতনা এবং জীবনের মোড়কে ১৮০ ডিগ্রি ঘুরিয়ে মহান আল্লাহর দিকে ফিরিয়ে দেয়। 
তারুণ্যের উদ্দীপনায় যারা ভুল-ভ্রান্তির কেন্দ্রে  জীবনের বসন্তগুলোকে অতিবাহিত করছে, সেই ভুল-ভ্রান্তির বেড়াজাল থেকে তাদের  বের করে নিয়ে আসার জন্য "বেলা ফুরাবার আগে" বইটি যথেষ্ট।( ইনশাআল্লাহ) 

এ বইয়ে সময় উপযোগী বেশ কয়েকটা অধ্যায় রয়েছে যা পড়ে আমরা আমাদের জীবনের পথ চলা শুরু করতে পারি। এই পথ অতি কষ্টের। তবে এর শেষ অতি সুন্দর, অতি মনোরম। এই পথে রয়েছে পরম আরামে চোখ বুজে আসা ক্লান্তি শেষের শান্তি। 
বেলা ফুরাবার আগে,  আজ তবে ফেরা হোক নীড়ে।


মন খারাপের দিনগুলােতে আল্লাহকে আপনার সঙ্গী বানান, দেখবেন সে মুহূর্তগুলাে সব আচমকা আপনার জীবনের সেরা মুহূর্তে পরিণত হয়ে গেছে। তাই যে দুঃখগুলাের কথা কাউকে বলতে পারছেন না, যে দুশ্চিন্তার অনলে আপনি দগ্ধ হচ্ছেন প্রতিদিন, যে ভয় আপনাকে তাড়িয়ে বেড়াচ্ছে অহরহ, হারানাের যে বেদনা আপনাকে কুরে কুরে খাচ্ছে, যে অস্থিরতা আপনাকে ঘুমােতে দিচ্ছে না, যে ভগ্নহৃদয় আপনাকে ভেঙে খানখান করে দিচ্ছে, সে সমস্ত মন খারাপের গল্পে কেবল বলুন:-
"হাসবুনাল্লাহু ওয়া নি'মাল ওয়াকিল।"
আমার জন্য আমার আল্লাহই যথেষ্ট।
বিশ্বাস করুন, আপনার সমস্ত মন খারাপের উপশমের জন্য কেবল এটুকুই যথেষ্ট।
"আল্লাহ যার অভিভাবক
কপালে তার দুশ্চিন্তার ভাঁজ থাকতেই পারে না।"
- বেলা ফুরাবার আগে | আরিফ আজাদ

আরজ আলী সমীপে pdf Download by Arif Azad

Download

ইসলামে হযরত খাদীজার অবদান ও মর্যাদা: সহীহ বুখারীতে বর্ণিত হয়েছে, রাসূলুল্লাহ সা.এর কাছে নবুওতের অহী আসার আগে তিনি হেরা গুহায় গমন করতেন। গুহাটি মদীনার পথে পড়ে। সেখানে গিয়ে তিনি ইবাদত করতেন। একদিন তিনি শান্ত মনে ধ্যানে মশগুল; হঠাৎ জিবরাইল আত্মপ্রকাশ করে বললেন, ‘পড়ুন।

রাসূলুল্লাহ সা. নির্জন গুহায় হঠাৎ কারাে কণ্ঠ শুনে ঘাবড়ে গেলেন। তিনি বললেন, 'আমি কখনাে কিতাব পড়িনি। আমি ভাল করে এসব পারি না।

আমি পড়ালেখা জানি না।' জিবরাইল আ. পুনরায় তাকে জড়িয়ে ধরলেন। যখন তার কষ্ট হচ্ছিল তখন ছেড়ে দিয়ে বললেন, ‘এবার পড়ন। তিনি একই জবাব দিলেন, আমি পড়তে পারি না।' জিবরাইল আ. আবার তাকে জোরে চেপে ধরলেন। যখন তাঁর খুব কষ্ট হচ্ছিল তখন ছেড়ে দিয়ে বললেন, এখন পড়ুন।' তিনি বললেন, “আমি পড়তে পারি' জিবরাইল আ. তৃতীয় বারের মতাে তাঁকে জড়িয়ে ধরলেন। যখন তাঁর খুব কষ্ট হচ্ছিল তখন ছেড়ে দিয়ে বললেন-

 তুমি পড় তােমার প্রভুর নামে, যিনি সৃষ্টি করেছেন। সৃষ্টি করেছেন।


মানুষকে রক্তপিণ্ড থেকে। পড় এবং তােমার প্রতিপালক মহিমান্বিত।

যিনি কলমের সাহায্যে শিক্ষা দিয়েছেন। তিনি শিক্ষা দিয়েছেন মানুষকে যা সে জানত না। (সূরা আলাক ৪ ১-৫)

আরজ আলী সমীপে pdf Download by Arif Azad


গল্পগুলো অন্যরকম pdf download by Arif Azad    

Click here to Download

পবিত্র কুরআনের প্রথম নাযিলকৃত আয়াতগুলাে শুনে এবং অদ্ভুত হালতের সম্মুখীন হয়ে অজানা আতঙ্কে রাসূলুল্লাহ সা. প্রচণ্ড ভয় পেয়ে গেলেন। তিনি দ্রুত মক্কায় ফিরে এসে হযরত খাদীজার ঘরে প্রবেশ করলেন। তখনাে তাঁর আত্মা ধরফর করছে। বললেন, আমাকে চাদর দিয়ে ঢেকে দাও। আমায় ঢেকে দাও।' বলতে বলতে তিনি বিছানায় গা। জড়িয়ে দিলেন। ঘরের লােকেরা তাঁকে চাদর দিয়ে ঢেকে দিলেন। তিনি শুয়ে আছেন, আর খাদীজা রা. তাঁর দিকে অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে বিস্ময়ভরে ভাবছেন, কিসে তাঁকে ভয় পাইয়ে দিল?

গল্পগুলো অন্যরকম pdf download by Arif Azad


এক সময় রাসূলুল্লাহ সা.এর ভীতি কিছুটা কমে এলে তিনি খাদীজার কাছে সব কথা খুলে বলে বললেন, ‘খাদীজা! আমি আমার জীবন নিয়ে শঙ্কা বােধ করছি।' খাদীজা তাঁকে সান্তনা দিয়ে বললেন, ‘এ আশঙ্কা কিছুতেই বাস্তবায়িত হতে পারে না। আল্লাহর কসম! আল্লাহ আপনাকে কিছুতেই লাঞ্ছিত করবেন না। আপনি রক্তের সম্পর্ক রক্ষা করেন।

মেহমানের কদর করেন। মানুষের বােঝা বহন করেন। নিঃস্বকে উপার্জন করে দেন। বিপদে মানুষকে সাহায্য করেন। কাজেই আপনার রব আপনার জন্য অকল্যাণকর কিছুই করবেন না। হন।


এভাবে হযরত খাদীজা সূচনা থেকেই রাসূলুল্লাহর মনে সাহস যােগাতে থাকেন। পরবর্তীতেও তাঁর এ কর্ম প্রচেষ্টা কখনাে থেমে ছিল না।

জীবনের শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত তাঁর এ উদ্যম অটুট ছিল। তারপর তিনি রাসূলুল্লাহ সা.কে স্বীয় চাচাতাে ভাই ওয়ারাকা ইবনে নওফেলের কাছে নিয়ে গেলেন। ওয়ারাকা তখন বৃদ্ধ ও অন্ধ। জাহেলী যুগেই তিনি খৃষ্টধর্ম বরণ করেছিলেন। নিয়মিত ইঞ্জিল পড়তেন ও লিখতেন। নবীদের ঘটনা সম্পর্কে তার অগাধ জ্ঞান ছিল। প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ২ Pdf download || Paradoxical Sajid 2 Pdf Download

হযরত খাদীজাতুল কুবরা রা. রাসূলুল্লাহ সা.কে নিয়ে গিয়ে তার কাছে বসলেন।

বললেন, ‘ভাই! আপনার ভাতুষ্পত্রের কথা শুনুন। তিনি অদ্ভুত কিছু দেখেছেন।' ওয়ারাকা বললেন, কী ভাতিজা! তুমি কী দেখেছ? আমাকে নির্ভয়ে সব খুলে বল।

রাসূলুল্লাহ সা. যা দেখেছেন তাকে খুলে বললেন এবং কুরআনের প্রথম নাযিলকৃত আয়াতগুলােও পড়ে শােনালেন। কুরআনের আয়াত ও ঘটনা শুনে ওয়ারাকা আনন্দে হতবিহ্বল হয়ে চিষ্কার করে উঠলেন! বললেন, ‘মারহাবা! মারহাবা! সুসংবাদ! সুসংবাদ! এটা তাে সেই অহী যা হযরত মুসার কাছে নাযিল হয়েছিল। হায়! আমি যদি সেই যামানা পেতাম যখন তােমার জাতি তােমাকে বের করে দিবে! তাহলে তােমার সাহায্যে আমি এগিয়ে আসতাম।

ওয়ারাকার বক্তব্য শুনে রাসূলুল্লাহ সা. ভয় পেয়ে গেলেন। স্ববিস্ময়ে প্রশ্ন করলেন, আমার জাতি আমাকে বের করে দিবে?! ওয়ারাকা বললেন, ‘হা, তুমি যে বিষয় নিয়ে আগমন করেছ, ইতিপূর্বে যে কেউ এমন বিষয় নিয়ে আগমন করেছে, তাকেই কষ্ট দেওয়া হয়েছে। আমি যদি তােমার নবুওয়াত বিস্তারের যামানা পাই তাহলে অবশ্যই তােমাকে পূর্ণ সহযােগিতা করব।'

প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ১ Pdf download || Paradoxical Sajid 1 Pdf Download  

Paradoxical Sajid 2 pdf download

প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ ১ Pdf download || Paradoxical Sajid 1 Pdf Download

হযরত খাদীজা রা. রাসূলুল্লাহ সা.কে নিয়ে ওয়ারাকার কাছ থেকে চলে এলেন। তিনি তখন নিশ্চিত হয়ে গেছেন তার স্বামীকে কেন্দ্র করেই নিদ্রাচ্ছন্ন যুগের অবসান ঘটতে চলেছে। এবার জাগার সময় হয়েছে।
কাজেই সার্বিক পরিস্থিতিতে যে কোনাে মূল্যে তাঁকে তাঁর স্বামীর সঙ্গ দিতে হবে। ফলে রাসূলুল্লাহ সা. দীনের দাওয়াতের কাজে ঘর থেকে বের হলে তিনিও তাঁর সাথে বের হতেন। দীনের জন্য নিজেও রাসূলুল্লাহ সা.এর পাশে থেকে কষ্ট স্বীকার করতেন। রাসূলুল্লাহ সা.কে তিনি সব সময় চোখে চোখে রাখতেন, যেন কেউ তার কোনাে ক্ষতি করতে না পারে।

হযরত খাদীজাতুল কুবরা রা. ছিলেন মক্কার প্রখ্যাত ধনাঢ্য ব্যক্তি খুওয়াইলিদের আদরের একমাত্র কন্যা। প্রাচুর্য, সম্মান, স্বাচ্ছন্দ্য আর অঢেল সম্পদের মাঝে কেটেছে তাঁর শৈশব, কৈশাের, যৌবনকাল। অথচ আজ তিনি স্বেচ্ছায় কষ্ট আর মসীবতকে স্বাগত জানাচ্ছেন। দীনের সাহায্যার্থে তিনি কখনাে এতটুকু সঙ্কোচবােধ করেননি। কোনাে সংশয় বা দ্বিধাবােধ করেননি। আল্লাহর প্রতি তাঁর ছিল দৃঢ় বিশ্বাস, অবিচল আস্থা।

নিজের ধন-সম্পদ, মেধা-মেহনত সর্বস্ব দীনের স্বার্থে নবীর জন্য কুরবান করে দিয়েছিলেন। জীবনের শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত দীনের ওপর অটল ও অবিচল অবস্থায় কাটিয়েছেন।


আসমানের আয়োজন আরিফ আজাদ Pdf Download

Download

আসমানের আয়োজন আরিফ আজাদ Pdf Download

হাদীস শরীফে বর্ণিত হয়েছে, একদা জিবরাইল আ. নবী কারীম সা.কে বললেন, ইয়া রাসূলুল্লাহ! এই যে খাদীজা প্রতিদিন আপনার সাথে আসে, আপনার জন্য খানা-পানি ও তরকারী নিয়ে আসে, তাঁকে তাঁর রবের পক্ষ থেকে ও আমার পক্ষ থেকে সালাম বলবেন এবং তাকে এমন জান্নাতের সুসংবাদ দান করবেন যেখানে কোনাে কোলাহল বা ক্লান্তি নেই।'


এই সেই খাদীজা যিনি নিজের জীবন থেকে মূর্তিপূজা ছুড়ে ফেলে তাঁর রবের ডাকে, রাসূলুল্লাহ সা.এর ডাকে সর্বপ্রথম সাড়া দিয়েছিলেন।

নিশ্চয়ই আল্লাহ তাআলা উম্মুল মুমিনীন হযরত খাদীজার প্রতি সন্তুষ্ট।


আজ খাদীজার কন্যারা কেন তার অনুসরণ করে না! আমার বােন! কেন আপনি মা খাদীজার অনুসরণ করেন না! কেন আপনি তাঁকে আপনার আদর্শ ও মডেল হিসেবে গ্রহণ করেন না! অথচ তাঁর অনুসরণের মাঝেই রয়েছে অনন্ত সুখের ঠিকানা জান্নাত। যেখানে কোনাে রােগ বা কষ্ট নেই, বেদনা বা দুঃখ নেই।


কম একজন জান্নাতী নারীর গল্প ইসলামের ইতিহাসে যে সকল নারীর নাম চিরভাস্কর ও সমুজ্জ্বল হয়ে আছে তাদের একজন হলেন, হযরত আনাস বিন মালেকের মা হযরত গুমাইসা রাযি.। উপনাম উম্মে সুলাইম। তাঁর সম্পর্কে বর্ণিত হয়েছে, রাসূলুল্লাহ সা. ইরশাদ করেন, “আমি জান্নাতে প্রবেশ করে সেখানে কারাে ক্ষীণ আওয়াজ শুনতে পেলাম। দেখলাম, সেখানে গুমাইসা বিনতে মিলহান অবস্থান করছেন।


উম্মে সুলাইম ছিলেন এক বিস্ময়কর নারী। জাহেলী যুগের আরাে দশটা যুবতীর মতােই তাঁর যৌবন কেটেছে। সে সময় তিনি মালেক বিন ন্যরের সাথে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। মদীনাতে ইসলামের আগমনকালে মদীনার আনসাররা ইসলাম গ্রহণ করলে উম্মে সুলাইমও ইসলামের অগ্রবর্তীদের দলে শামিল হন। 

 আরিফ আজাদের বইগুলো ভাল লাগলে পোস্টটি শেয়ার করুন। 

Previous Post
Next Post

post written by:

0 Comments: