শ্রীমদ্ভগবদগীতা বাংলা Pdf download - Srimad Bhagavad Gita Jothajotho Pdf

শ্রীমদ্ভগবদগীতা বাংলা Pdf download - Srimad Bhagavad Gita Jothajotho Pdf

Today i am share Srimad Bhagavad Gita Jothajotho pdf free download links. শ্রীমদ্ভগবদগীতা বাংলা pdf download link: 

ধরণঃ হিন্দু ধর্মীয় বই

ভাষাঃ বাংলা (Bangla/Bengali book pdf download)


শ্রীমদ্ভগবদগীতা বাংলা Pdf download - Srimad Bhagavad Gita Jothajotho Pdf


Srimad Bhagavad Gita Jothajotho (chapter 1-6) Part-1
মোট পেজ সংখ্যাঃ   230
PDF ফাইল সাইজ:- 43mb
pdf  or Read online

Srimad Bhagavad Gita Jothajotho (chapter 7-12) Part-2
মোট পেজ সংখ্যাঃ  153
PDF ফাইল সাইজ:- 28 mb
 pdf  or Read online

Srimad Bhagavad Gita Jothajotho (chapter 13-18) Part-3
মোট পেজ সংখ্যাঃ   141
PDF ফাইল সাইজ:- 25 mb
pdf  or Read online

শ্রীমদ্ভগবদগীতা যথাযথ বই রিভিউ/ Review:

কৃষ্ণকৃপাশ্রীমুর্তি শ্রীল অভয়চরণারবিন্দ ভক্তিবেদান্ত স্বামী প্রভুপাদ আবির্ভূত হন ১৮৯৬ সালে কলকাতায়। তার সঙ্গে তার গুরুদেব শ্রীল ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী গােস্বামী ঠাকুরের প্রথম মিলন হয় কলকাতায় ১৯২২ সালে। শ্রীল ভক্তিসিদ্ধান্ত


সরস্বতী ঠাকুর ছিলেন তখনকার দিনের শ্রেষ্ঠ পণ্ডিত এবং সর্বাগ্রগণ্য ভগবদ্ভুক্ত।


তিনি গৌড়ীয় মঠ প্রতিষ্ঠা করেন এবং সমস্ত ভারত জুড়ে ৬৪টি মন্দির স্থাপন করেন। এই শিক্ষিত যুবক অভয়চরণকে তার খুব ভাল লাগে এবং বৈদিক জ্ঞান শিক্ষাদানের উদ্দেশ্যে নিজেকে উৎসর্গ করতে তিনি তাকে অনুপ্রাণিত করেন। শ্রীল


প্রভুপাদ তার শিষ্যত্ব বরণ করেন এবং ১১ বছর পরে ১৯৩৩ সালে এলাহাবাদে তিনি আনুষ্ঠানিকভাবে তার থেকে দীক্ষা গ্রহণ করেন।


১৯২২ সালে যখন তাদের প্রথম মিলন হয়, তখন শ্রীল ভক্তিসিদ্ধান্ত সরস্বতী ঠাকুর শ্রীল প্রভুপাদকে ইংরেজী ভাষার মাধ্যমে বৈদিক জ্ঞান প্রচার করতে অনুরােধ


করেন। শ্রীল প্রভুপাদ গৌড়ীয় মঠের কার্যে সাহায্য করতে থাকেন এবং বৈদিক শাস্ত্রগ্রন্থের সব চাইতে গুরুত্বপূর্ণ গ্রন্থ শ্রীমদ্রগবদগীতার ভাষ্য রচনা করেন। ১৯৪৪ সালে এককভাবে তিনি Back to Godhead নামক একটি ইংরেজী পাক্ষিক পত্রিকা প্রকাশ করতে শুরু করেন। তিনি নিজেই পাণ্ডুলিপিগুলি টাইপ করতেন, সম্পাদনা করতেন, পুফ দেখতেন, সেই পত্রিকাগুলি বিতরণ করতেন এবং সেই


প্রকাশনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য সংগ্রাম করতেন। একবার শুরু হওয়ার পর, সেই পত্রিকা আর বন্ধ হয়নি; এখনও পর্যন্ত সেই পত্রিকাটি ৩০টি ভাষায় তার পাশ্চাত্য ও প্রাচ্য শিষ্যদের দ্বারা প্রকাশিত হচ্ছে।


শ্রীল প্রভুপাদের দার্শনিক তত্ত্বজ্ঞান ও ভক্তির স্বীকৃতি হিসাবে গৌড়ীয় বৈষ্ণব সমাজ ১৯৪৭ সালে তাঁকে ভক্তিবেদান্ত’ উপাধিতে ভূষিত করেন। ১৯৫০ সালে ৫৪ বছর বয়সে শ্রীল প্রভুপাদ সংসার-জীবন থেকে অবসর গ্রহণ করেন। তার


৪ বছর পরে অধ্যয়ন ও রচনার কাজে আরও গভীরভাবে মনােনিবেশ করবার জন্য তিনি বানপ্রস্থ-আশ্রম গ্রহণ করেন এবং তার কিছুদিন পরে তিনি বৃন্দাবন ধামে গমন করেন। সেখানে প্রাচীন ঐতিহ্যপূর্ণ শ্রীশ্রীরাবা-দামোদর মন্দিরের একটি ঘরে তিনি কয়েক বছর ধরে অধ্যয়ন ও গ্রন্থরচনার কাজে গভীরভাবে মগ্ন ছিলেন। ১৯৫৯ সালে তিনি সন্ন্যাস-আশ্রম গ্রহণ করেন। শ্রীশ্রীরাধা-দামােদর মন্দিরে এল উচ্চাভিলাষপূর্ণ পরিকল্পনা হচ্ছে পশ্চিমবাংলার মায়াপুরে ৫০ হাজার কৃষ্ণভক্তদের


নিয়ে বৈদিক শহর গড়ে তােলার পরিকল্পনা, যা পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ সংস্কৃতিসম্পন্ন বৈদিক জীবনধারার দৃষ্টান্তরূপে সমস্ত পৃথিবীর কাছে আদর্শরূপে প্রতীয়মান হবে।


শ্রীল প্রভুপাদের সবচেয়ে উল্লেখযােগ্য অবদান হচ্ছে তার গ্রন্থসম্ভার। বিদ্বৎ- সমাজ দিব্যজ্ঞান সমন্বিত এই গ্রন্থগুলির প্রামাণিকতা, গভীরতা ও প্রাঞ্জলতা এক বাক্যে শ্রদ্ধার সঙ্গে স্বীকার করেছেন এবং এই সমস্ত গ্রন্থগুলিকে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের পাঠ্যপুস্তক হিসাবে গ্রহণ করা হয়েছে। প্রভুপাদের লেখা বইগুল প্রায় ৫০টিরও বেশি বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে। ভক্তিবেদান্ত বুক ট্রাস্ট, যা প্রভুপাদের গ্রন্থগুলি প্রকাশ করবার জন্য ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল, তা আজ ভারতীয় ধর্ম ও দর্শন সংক্রান্ত বৃহত্তম গ্রন্থ-প্রকাশক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে।


এই ভক্তিবেদান্ত বুক ট্রাস্ট এখন ৯টি খণ্ডে শ্রীল প্রভুপাদের ইংরেজী অনুবাদ ও ভাষ্য সমন্বিত বাংলা শাস্ত্রীয়গ্রন্থ শ্রীচৈতন্যচরিতামৃত প্রকাশ করেছে, যা শ্রীল প্রভুপাদকেবল ১৮ মাসের মধ্যে সম্পূর্ণ করেছিলেন।


কেবলমাত্র ১২ বছরের মধ্যে, এত বয়েস হওয়া সত্ত্বেও, শ্রীল প্রভুপাদ ছয়টি মহাদেশেরই বিভিন্ন স্থানে ভগবৎ-তত্ত্বজ্ঞান সমন্বিত ভাষণ দেওয়ার জন্য ১৪ বারপৃথিবী প্রদক্ষিণ করেছেন। এই রকম কঠোর কর্মসুচি থাকা সত্ত্বেও শ্রীল প্রভুপাদ


প্রবলভাবে তার লেখার কাজ চালিয়ে যান। তাঁর গ্রন্থসমূহ হচ্ছে বৈদিক দর্শন, ধর্ম সাহিত্য ও সংস্কৃতির একটি প্রামাণ্য গ্রন্থাগার।


১৯৭৭ সালের ১৪ই নভেম্বর শ্রীল প্রভুপাদ শ্রীধাম বৃন্দাবনে তাঁর অপ্রকট লীলাবিলাস করেন। শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর বাণী—“পৃথিবীতে আছে যত নগরাদি গ্রাম। সর্বত্র প্রচার হইবে মাের নাম সার্থক করার জন্য তিনি এখানে এসেছিলেন। এবং শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুর বাণী প্রচার করে সমস্ত জগৎকে ভগবানের শ্রীপাদপদ্মে আশ্রয় গ্রহণ করার অমৃতময় পথ প্রদর্শন করে গেছেন। পৃথিবীর মানুষ যে দিন বৈষয়িক জীবনের নিরর্থকতা উপলব্ধি করতে পেরে পারমার্থিক জীবনে ব্রতী হবেন, সেই দিন তারা সর্বান্তঃকরণে শ্রীল প্রভুপাদের অবদান উপলব্ধি করতে পারবেন এবং শ্রদ্ধাবনত চিত্তে তার চরণারবিন্দে প্রণতি জানাবেন। ১৯৭৭ সালে শ্রীধামবৃন্দাবনে তিনি অপ্রকট হয়েছেন, কিন্তু আজও তিনি তাঁর অমৃতময় গ্রন্থের মধ্যে, ভগবানের বাণীর মধ্যে মূর্ত হয়ে আছেন। তার শিক্ষায় অনুপ্রাণিত হয়ে যাঁরা


ভগবানের কাছে ফিরে যাওয়ার প্রয়াসী, তাদের পথ দেখাবার জন্য তিনি চিরকাল তঁাদের হৃদয়ে বিরাজ করবেন।

শ্রীমদ্ভগবদগীতা যথাযথ বই

নিচের থেকে vpn ব্যবহার করে ডাউনলোড করুন। 

শ্রীমদ্ভগবদগীতা যথাযথ বই pdf list:

Gita Preface
Gita Chapter – 01
Gita Chapter – 02
Gita Chapter – 03
Gita Chapter – 04
Gita Chapter – 05
Gita Chapter – 06
Gita Chapter – 07
Gita Chapter – 08
Gita Chapter – 09
Gita Chapter – 10
Gita Chapter – 11
Gita Chapter – 12
Gita Chapter – 13
Gita Chapter – 14
Gita Chapter – 15
Gita Chapter – 16
Gita Chapter – 17
Gita Chapter - 18

শ্রীমদ্ভগবদগীতা যথাযথ pdf download করতে কোনো সমস্যা হলে জানাবেন। 


Previous Post
Next Post

post written by:

0 Comments: