একটি দেশ যেভাবে দাঁড়ায় Pdf Free Download

একটি দেশ যেভাবে দাঁড়ায় Pdf Free Download

ekta desh jevabe daray pdf download  |একটি দেশ যেভাবে দাঁড়ায় রউফুল আলম pdf download:

Details:

  • লেখক: rofiqul alam(রউফুল আলম)
  • প্রকাশনী: সমগ্র প্রকাশন
  • ক্যাটাগরি: শিক্ষা বিষয়ক বই
  • ১ম প্রকাশ: 2019 সাল
  • মোট পেজ: ১৯২ পৃষ্ঠা
  • collected from: Facebook
  • ফরম্যাট: Bangla book Pdf download

ekta desh jevabe daray pdf download  |একটি দেশ যেভাবে দাঁড়ায় রউফুল আলম pdf download:


একটা দেশ যেভাবে দাঁড়ায় বুক রিভিউ


দেশে মূল্যবোধের অবক্ষয়ের এই কালে একবিংশ শতাব্দীর কিশোর ও তরুণদের আমরা কিভাবে উদ্ভূদ্ধ করবো, কিভাবে তাদের মানবসম্পদে গড়ে তুলতে মানসম্পন্ন গবেষণার দ্বার উন্মোচন করবো, কিভাবে তাদের দৃষ্টিকে প্রসারিত করতে পারবো, এইসব তরুণ প্রজন্মকে নিয়ে দিকনির্দেশনার প্রতিস্বরুপ ও অনুপ্রেরণার মাইলফলক  বই "একটা দেশ যেভাবে দাঁড়ায়"।


বিজ্ঞানী রউফুল আলমের সাড়া জাগানো গ্রন্থে "একটা দেশ যেভাবে দাঁড়ায়" মূলত  দেশের উন্নয়ন ও সফল ভাবে দাঁড়াবার পূবশর্ত হিসেবে শিক্ষাব্যবস্থা ও গবেষণার উপর গুরুত্বারোপ করেছেন।

তিনি বলেছেন,

শিক্ষা যদি জাতির মেরুদণ্ড হয় তাহলে শিক্ষাঙ্গন হয় সে মেরুদন্ডের কশেরুকা।কশেরুকা দূর্বল হয়ে গেলে যেমন দেহের মেরুদণ্ড দূর্বল হয়ে যায়, মানুষ সোজা হয়ে দাঁড়াতে পারে না তদ্রূপ শিক্ষাঙ্গন দূর্বল হয়ে গেলে জাতি শির উঁচু করে দাঁড়াতে পারে না। তাই একটি দেশকে দাঁড়াতে হলে শিক্ষাঙ্গনকে জাগতে হয়।


বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের দীর্ঘশ্বাসটুকু শুনুনঃ

প্রায় দুই বছর ধরে ইউনিভার্সিটি অব পেনসিলভানিয়া (UPenn) গবেষণা করেছি। ল্যাবরেটরি থেকে বের হতে হতে প্রায়ই রাত ৯টা-১০টা বাজত। কখনাে কখনাে ১১টা কিংবা ১২টা। বহুবার লক্ষ করেছি, এই গভীর রাতেও অনেকে বসে বসে কাজ করছেন।


তাঁদের ঘড়িগুলাে যেন বন্ধ হয়ে আছে। ঘড়ির কাঁটা তাদের সামান্যতম তাড়া দিতে পারে না। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ রাত দুইটা পর্যন্ত কিছু বাস (শাটল) সার্ভিস দিয়ে রেখেছে। কেউ যদি গভীর রাতে বাসায় ফিরতে নিরাপত্তাহীনতায় ভােগেন, তাহলে সে গাড়িগুলাে তাকে বাসার দরজায় পৌছে দেয়। সার্ভিসটা যেহেতু রাত দুইটা পর্যন্ত, তার মানে কেউ না কেউ সে সময় পর্যন্তই কাজ করছে। কী সাংঘাতিক ব্যাপার!


ভাবলাম, এই যে গভীর রাত পর্যন্ত রুমে রুমে আলাে জ্বলছে, সেটার কারণেই এই দেশটা পৃথিবীর পরাশক্তি। শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা খেটে যাচ্ছেন প্রতিযােগিতা দিয়ে। একটা প্রতিযােগিতা যখন সঠিকভাবে দাঁড় করানাে যায়, তখন সেখান থেকে সেরাদের সেরা বেরিয়ে আসে। আর এই প্রতিযােগিতায় লেগে থাকার জন্য, সমাজ পর্যাপ্ত সুযােগ-সুবিধা দিয়ে রেখেছে। রাষ্ট্র দিচ্ছে তরুণদের জন্য এক প্রাণবন্ত পরিবেশ। আর তরুণেরা দেশের জন্য দিচ্ছে মেধা ও শ্রম! কী ঐকতান!


আমরা প্রায়ই আমাদের দেশের ছেলেমেয়েদের অলস-অনাগ্রহী বলে দায়মুক্ত হয়ে যাই। আসলে কি ওরা অলস? একটা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা ছারপােকার কামড় খেয়ে হলে রাত কাটান। পাঁচ-ছয়জন শিক্ষার্থী ঠাসাঠাসি করে একটি রুমে থাকেন।


১৫-২০ টাকায় ৫-৭ বছর অখাদ্য খেয়ে পাকস্থলী পােড়ান। বাসের ডান্ডা ধরে বাদুড়ের মতাে ঝুলে ঝুলে ক্যাম্পাসে যান। ভিড়ের মধ্যে অন্যের ঘামের গন্ধ শুকে, ঘণ্টাখানেক দাঁড়িয়ে থেকেই ইউনিভার্সিটিতে যাতায়াত করতে হয়। পরীক্ষার আগের রাতেও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পান না। টিউশনি করে মাস চালাতে হয়। কেউ কেউ সে টাকা দিয়ে পরিবারকেও দেখেন। একটা কম্পিউটার কেনার জন্য টাকাও অনেকের থাকে না। এত সংগ্রামের পরও তারা ইউনিভার্সিটিতে পড়তে আসেন। পড়ে যাচ্ছেন। বড় বড় স্বপ্ন দেখেন। আর যখনই ইউনিভার্সিটি থেকে বের হন, তখন তাঁদের হাতে শুধু একটি সনদ ধরিয়ে দেওয়া হয়। না কোনাে গবেষণার অভিজ্ঞতা, না কোনাে প্রফেশনাল জীবনের সঠিক প্রস্তুতি! উপরন্তু জীবন থেকে কেড়ে নেওয়া হয় কিছু সময়। আমরা এর নাম দিয়েছি ‘সেশনজট। হারানাে সময়ের সে হিসাব কোথাও লেখা থাকে না। সেশনজটের মতাে ঘৃণ্য একটি বিষয় পৃথিবীর কোনাে সভ্য দেশে নেই। হাজার হাজার ছেলেমেয়ের জীবন থেকে সময় কেড়ে নেওয়া রাষ্ট্রের জন্য ভয়ংকর অভিশাপ। তারপরও বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন উপাচার্য কখনাে বলেন না, ‘ডিয়ার স্টুডেন্ট, উই আর সরি ফর দ্যাট।

ইউ উইল ট্রাই টু মেইক থিংকস বেটার!


অথচ এই ছেলেমেয়েগুলাের মা-বাবার ট্যাক্সের টাকা দেশে লুট হয়ে যায়। কী নির্মম! পৃথিবীর আর কয়টা দেশে এত যুদ্ধ করে ছেলেমেয়েরা পড়াশােনা করে? একবার আন্তর্জাতিক স্টুডেন্টদের এক

আড্ডায় আমাদের শিক্ষাজীবনের সংগ্রামের কথা বলেছিলাম। তা শুনে দেখলাম ওদের কেউ কেউ চোখ মুছছে। দেশের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেমেয়েরা কত সংগ্রাম করেন, কত কষ্ট করেন, সেটা আমি গভীরভাবে জানি। কারণ একটা নিরেট গ্রাম থেকে পড়াশােনা করে আমাকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জীবন পাড়ি দিতে হয়েছে।


রফিকুল আলমের বেস্ট উক্তিগুলো:

১.

"If you think you are too small to make a difference, 

you haven’t spent a night with a mosquito"

(African proverb)


২. 

যে দেশ তার কলেজ -বিশ্ববিদ্যালয়ের ছেলেমেয়েদের  ভালো রাখার চেষ্টা করে তাদের দুঃখ  কান পেতে শোনে, সে দেশ নীরোগ থাকে।


একটি দেশ যেভাবে দাঁড়ায় রউফুল আলম pdf download link: click here to download Ekta desh jevabe daray Pdf




Previous Post
Next Post

post written by:

0 Comments: