অনার্স ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১- ২২ | Honours Admission 2021-22

অনার্স ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১- ২২ | Honours Admission 2021-22

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি ২০২০-২১ (national university admission 2020-21) : ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি এডমিশন সার্কুলারটি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় হোম পেজ থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে। 

অনার্স ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১- ২২ | Honours Admission 2021-22


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২১- ২২

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) ভর্তি সার্কুলার বা ভর্তি বিজ্ঞপ্তি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট admissions.nu.edu.bd প্রকাশ হয়েছে।জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণীতে মানবিক শাখায় ভর্তির জন্য এসএসসি, এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ-২.৫০ করে থাকতে হবে। আর বিজ্ঞান ও ব্যবসা শিক্ষায় ভর্তির জন্য এসএসসিতে জিপিএ-৩ এবং এইচএসসিতে জিপিএ-২.৫০ লাগবে।

অনার্সে ভর্তি হওয়ার নিয়ম - জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আবেদনের যোগ্যতাঃ


► শিক্ষার্থী যে কোন শিক্ষা বোর্ড এর মানবিক শাখায় ভর্তির জন্য এসএসসি, এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় ন্যূনতম জিপিএ-২.৫০ করে থাকতে হবে। আর বিজ্ঞান ও ব্যবসা শিক্ষায় ভর্তির জন্য এসএসসিতে জিপিএ-৩ এবং এইচএসসিতে জিপিএ-২.৫০ লাগবে।

► অন্যান্য শিক্ষা বোর্ড/বিশ্ববিদ্যালয় থেকে SSC ও HSC সমমানের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রাথীরা উপরোক্ত শর্ত সাপেক্ষে আবেদন করতে পারবে। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের HSC সমমান কোর্সসমূহ থেকে
i) এইচ.এস.সি. (ভোকেশনাল)
ii) এইচ.এস.সি. (বিজনেস্ ম্যানেজমেন্ট)
iii) ডিপ্লোমা-ইন-কমার্স পরীক্ষায় উত্তীর্ণ প্রার্থীরা এ ভর্তি কার্যক্রমে আবেদন করতে পারবে।

► ২০১৭/২০১৮ সালের O-Level পরীক্ষায় তিনটি বিষয়ে ‘বি’ গ্রেডসহ অন্তত ০৪ (চার) টি বিষয়ে উত্তীর্ণ এবং ২০১৯/২০২০ সালের A- Level পরীক্ষায় একটি বিষয়ে ‘বি’ গ্রেডসহ অন্তত ০২ (দুই) টি বিষয়ে উত্তীর্ণ প্রার্থীরা এ ভর্তি কার্যক্রমে আবেদন করতে পারবে তবে প্রার্থীদের ভর্তি নির্দেশিকার অন্যান্য সকল শর্ত পূরণ করতে হবে। এ সকল প্রার্থীদের ডীন, স্নাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক স্কুল, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি যোগাযোগ করতে হবে।

► বিদেশী সার্টিফিকেটধারী প্রার্থীদের ক্ষেত্রেও বাংলাদেশ-এ স্বীকৃত যে কোন শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক তাদের অর্জিত মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের নম্বর পত্রের সমতা নিরূপণ করা হলে তারাও ভর্তির প্রাথমিক আবেদন করতে পারবে। বিদেশী সার্টিফিকেটধারী প্রার্থীদের আবেদনের ক্ষেত্রে ভর্তি নির্দেশিকার সকল শর্ত পূরণ করতে হবে। এ সকল প্রার্থীদেরকে ডীন, স্নাতকপূর্ব শিক্ষা বিষয়ক স্কুল, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি যোগাযোগ করতে হবে।

► আবেদনকারী উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষায় যে শাখা থেকে উত্তীর্ণ হয়েছে তাকে সেই শাখার জন্য নির্ধারিত ভর্তির প্রাথমিক আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষায় গার্হস্থ্য অর্থনীতি শাখা থেকে উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীর মানবিক শাখার আবেদন ফরম পূরণ করতে হবে।

► শিক্ষার্থী ১টি মাত্র কলেজে আবেদন করতে পারবে।
👉আবেদন শুরু......
👉আবেদন শেষ......

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় আবেদন ফিঃ
👉আবেদন ফি ২৫০ টাকা
আবেদন ফরম প্রিন্ট করে
আবেদন ফি ও প্রয়োজনীয়
কাগজপত্রসহ সংশ্লিষ্ট কলেজে

জমা দেওয়ার সময়সীমাঃ পরে জানিয়ে দিবে,,
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাস শুরুর তারিখঃ
ক্লাস শুরু.... জুলাই।
শুক্রবার (...মার্চ) এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এ তারিখ ঘোষনা করা হয়।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স বা সম্মান আসন সংখ্যাঃ
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স সিট সংখ্যা
৪ লাখ ৩৬ হাজার ১৩৫ টি
সূত্রঃ প্রথম আলো

অনার্স এ ভর্তি হতে কি কি লাগে - জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পদ্ধতিঃ

ভর্তি পরীক্ষা ছাড়াই এসএসসি ও এইচএসসি ফলাফলের ভিত্তিতে ছাত্রছাত্রী ভর্তি করানো হবে। প্রতিটি কলেজের জন্য আলাদাভাবে মেধা তালিকা তৈরী করে পরীক্ষার্থীদের পছন্দক্রম অনুযায়ী ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণির বিষয় বরাদ্দ দেয়া হবে।একই প্রতিষ্ঠান/কলেজে একই বিষয়ে দুই বা ততোধিক আবেদনকারীর প্রাপ্ত ফলাফল একই হলে সেক্ষেওে এ সকল আবেদনকারীর পর্যায়ক্রমে
i) ৪র্থ বিষয়সহ SSC ও HSC পরীক্ষায় প্রাপ্ত জিপিএ এর যথাক্রমে ৪০% ও ৬০%
ii) প্রয়োজন হলে SSC ও HSC পরীক্ষার মোট প্রাপ্ত নম্বরের যথাক্রমে ৪০% ও ৬০%
iii) এর পরেও যদি দুই বা ততোধিক আবেদনকারীর প্রাপ্ত ফলাফল একই হয়, তা হলে যার বয়স কম হবে তাকে অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

অনার্স ভর্তি ফরম ২০২১ - অনার্স ভর্তি আবেদন ২০২১

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি সংক্রান্ত জরুরী লিংকসমূহঃ
➡অনলাইনে আবেদনের ওয়েবসাইট এর ঠিকানাঃ
➡Admission Notice :
আবেদন কলেজ কর্তৃক নিশ্চিত হলে শিক্ষার্থীর মোবাইলে SMS এর মাধ্যমে জানানো হবে।
বিঃদ্রঃ আবেদন ফরমে যদি কোন ভুল থাকে তবে আবেদনকারী তা Cancel করে নতুন করে আবেদন করতে পারবে। ১ বারের বেশি Cancel করা যাবেনা। কলেজ কর্তৃক আবেদন ফরম নিশ্চিত হলে তা আর Cancel করা যাবে না।

ভর্তি ফরমের সাথে কলেজে যা যা জমা দিতে হবেঃ
আবেদনকারীকে প্রিন্ট করা প্রাথমিক আবেদন ফরমটির নির্ধারিত স্থানে স্বাক্ষর করতে হবে৷ এই আবেদন ফরমের সংগে প্রার্থীর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক/সমমান পরীক্ষার সত্যায়িত নম্বরপত্র, রেজিস্ট্রেশন কার্ডের সত্যায়িত কপি ও আবেদন ফি বাবদ ২৫০/- টাকা সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে জমা দিতে হবে৷ সংশ্লিষ্ট কলেজ যে সকল প্রাথমিক আবেদন online-এ নিশ্চয়ন করবে সে সকল শিক্ষার্থীদের তাদের মোবাইল নম্বরে এসএমএস এর মাধ্যমে তা জানিয়ে দেয়া হবে৷
✏️উল্লেখ্য, প্রাথমিক আবেদন নিশ্চয়ন ব্যতীত কোন প্রার্থীই ভর্তির যোগ্য বলে বিবেচিত হবে না। কলেজে আবেদন পত্র জমা দেয়ার পরে প্রার্থী তার মোবাইল ফোনে SMS না পেলে বুঝতে হবে যে তার আবেদন ফরম কলেজ কর্তৃক নিশ্চয়ন করা হয়নি। এক্ষেত্রে প্রার্থীকে সংশ্লিষ্ট কলেজে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে যোগাযোগ করতে হবে।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি ফলাফলঃ মেধাতালিকায় যার পয়েন্ট বেশি থাকবে সেই সুযোগ পাবে। ফলাফল কয়েকটি ধাপে প্রকাশিত হবে। যেমনঃ
১ম মেধাতালিকা।
২য় মেধাতালিকা (আসন খালি থাকা সাপেক্ষে) ও মাইগ্রেসন।
কোটা ও ও মাইগ্রেসন এর মেধাতালিকা।
রিলিজ স্লিপ এর আবেদন
এবং রিলিজ স্লিপ এর মেধাতালিকা।
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি ফলাফল এসএমএস এর মাধ্যমে ফলাফল জানতে লিখতে হবেঃ
NU<space>ATHN<space>Roll No
এবং পাঠাতে হবে ১৬২২২ নম্বরে।
এখানে, NU= National University
ATHN= Admission Test Honours
Admission Roll No= অনলাইনে ভর্তির আবেদন ফরমে প্রাপ্ত রোল নম্বর।
ভর্তি পরিক্ষার আবেদন ফরমে শিক্ষার্থীর কোন তথ্য অসত্য, ভুল বা অসম্পুর্ণ বলে প্রমানিত হলে তার আবেদন ফরম/চুড়ান্ত ভর্তি বাতিল করার অধিকার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।এই ভর্তি কার্যক্রমের যে ধারা/নিয়মাবলীর সংশোধন, সংযোজন, পরিবর্তন বা বাতিল জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।একই শিক্ষাবর্ষের কোনপ্রার্থী দ্বৈত ভর্তি হলে তা বাতিল করার অধিকার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ সংরক্ষণ করে।

NU অনার্স ১ম বর্ষের ফরম ফিলাপ Honours Form Fill Up 2021


জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অনার্স ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ও বিজ্ঞান, ব্যবসা ও মানবিক শাখার বিষয় বা বিভাগ সমূহ


✏️অনার্স বিজ্ঞান শাখার বিষয় সমূহ
অনার্স কি কি বিষয় আছে
অনার্সের বিষয় সমুহ
অনার্স বিজ্ঞান শাখার বিষয় সমুহ

  • পদার্থবিজ্ঞান
  • গনিত
  • রসায়ন
  • প্রান রসায়ন
  • পরিসংখ্যান
  • উদ্ভিদবিদ্যা
  • প্রাণিবিদ্যা
  • ভুগোল ও পরিবেশ পরিবেশ
  • মনো বিজ্ঞান
  • মৃত্তিকা বিজ্ঞান
  • কম্পিউটার বিজ্ঞান
  • গার্হস্থ্য অর্থনীতি ও অন্যান্য।

✏️অনার্স ব্যবসায় শাখার বিষয় সমূহ
অনার্স সাবজেক্ট কি কি
কমার্স এ কি কি সাবজেক্ট আছে
অনার্সের বিষয় সমুহ
অনার্স ব্যবসা শাখার বিষয় সমুহ

  • হিসাববিজ্ঞান
  • ফিন্যান্স ও ব্যাংকিং
  • ব্যবস্থাপনা
  • মার্কেটিং

✏️অনার্স মানবিক শাখার বিষয় সমূহ
অনার্স মানবিক বিভাগের বিষয়
আর্টস এর সাবজেক্ট কি কি
অনার্সের বিষয় সমুহ
অনার্স মানবিক শাখার বিভাগ সমুহ
  • ইংরেজী
  • অর্থনীতি,
  • বাংলা,
  • ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি
  • দর্শন,
  • রাষ্ট্রবিজ্ঞান,
  • লাইব্রেরি
  • সাইন্স,
  • সমাজকর্ম,
  • সমাজবিজ্ঞান,
  • ইতিহাস,
  • আরবি ইশলামী ইতিহাস,
  • বি.এড পলি সংস্কৃত ও অন্যান্য
জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অনার্স ভর্তি বিজ্ঞপ্তি ২০২০-২০২১


✏️জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্নাস ভর্তির নিয়ম

A To Z প্রশ্নের উত্তর।
((honours pass))

প্রশ্নঃ২০-২১ এর ভর্তি আবেদন কবে শুরু ?
উঃ বর্তমানে স্থগিত

প্রশ্নঃ আবেদন কোথায় গিয়ে করতে হবে ?
উঃ যে সকল দোকানে অনলাইনের কাজ করা হয় ঐখান।

প্রশ্নঃ আবেদনের সময় কী কী লাগবে ?
উঃ SSC ও HSC এর রোল ও পাশের সন এবং ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ রঙ্গিন ছবি এবং ১টি সচল ফোন নাম্বার।

প্রশ্নঃ পাশের সালের কী কোনো সীমাবদ্ধতা আছে?
উঃ জ্বী আছে। আপনার SSC ১৭,১৮এবং HSC ১৯-২০ সালে পাশ থাকতে হবে।এর ১টি কম /বেশি হলে পারিবেন না।

প্রশ্নঃ কতটি কলেজ চয়েজ দিতে হয় ?
উঃ ১টি।

প্রশ্নঃ কতটি বিষয় চয়েজ দেয়া যায় ?
উঃ যে কয়টি আপনার সামনে প্রদর্শিত হবে সব দিতে পারেন। আপনার ইচ্ছা। চাইলে ১টা ও দিতে পারেন।

প্রশ্নঃআবেদন অন্য কেউ করে দিলে হবে না ?
উঃ নিজ কাজ নিজে করা শ্রেয়।

প্রশ্নঃ আবেদনের সময় কত টাকা লাগে ? উঃ ৫০ বা ১শ টাকা।
প্রশ্নঃআবেদনে যদি কোনো প্রকার ভুল হয় অথবা আমি আমার সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করি তবে কি নতুন ভাবে আবেদন করা যাব?
উঃ হ্যা যাবে।তবে ১বার।কিন্তু ফর্মটি কলেজে জমা দিয়ে দিলে আর যাবে না।

প্রশ্নঃ আবেদনের সাথে সাথে অথবা কতদিন পরে কলেজে জমা দিতে হবে ?
উঃ আপনার ইচ্ছা তবে সময় শেষ এর মধ্যে।

প্রশ্নঃআবেদন ফর্মটি জমা দিতে নিজেকে যাইতে হবে ?
উঃহ্যা

প্রশ্নঃ ফর্মটি কোথায় জমা দিবো ?
উঃ যে কলেজটা চয়েজ দিছেন ঐটাতে।

প্রশ্নঃজমা দেয়ার সময় কি কি কাগজ নিয়ে যাবো ?
উঃ ssc ও hsc এর রেজিঃ কার্ড ও নম্বরপত্র (মার্কশীট) এর ফটো কপি।

প্রশ্নঃ কলেজেতো এখন মার্কশীট আসে নাই অথবা তুলি নাই অথবা ssc এর ফটোকপিটাও নাই। তাহলে কি করবো ?
উঃ অনলাইন থেকে মার্কশীট ডাউনলোড করে ঐটা জমা দিলেও হবে।

প্রশ্নঃ কাগজগুলোর কত কপি করে জমা দিতে হবে ?
উঃ ২ বা ৪ কপি করে।

প্রশ্নঃ কাগজ গুলা জমা দেয়ার সময় কি কিছু করতে হবে ?
উঃ হ্যা...আবেদন পত্র দুটি অংশ থাকবে ।১টি কলেজের অপরটি স্টুডেন্টদের।দুটি অংশ আপনার ছবি নিছে স্বাক্ষর ও তারিখ দিতে হবে।যেদিন জমা দিবেন সেদিনের তারিখ দিবেন।কলেজ আলাদা ভাবে ফোন নাম্বার চাইলে উপরে লিখতে হবে।

প্রশ্নঃ জমা দেয়ার পর কি কোনো মেসেজ আসবে ?
উঃ হ্যা ১টি মেসেজ আসবে। প্রশ্নঃ কত সময় বা দিনের মধ্যে মেসেজ টা আসবে ?
উঃ ১ থেকে ৫ দিনের মধ্যে।

প্রশ্নঃ যদি মেসেজ না আসে ?
উঃ মেসেজ না আসলে দ্রুত স্বশরীরে কলেজে উপস্থিত হয়ে যোগাযোগ করতে হবে।

প্রশ্নঃ আবেদন গ্রহন হয়েছে তা সিওর হওয়ার কোনো কি অন্য পথ আছে ? মেসেজ গুলা ডিলিট হয়ে গেছে তাই টেনশনে আছি।
উঃ হ্যা আছে।আপনার কাছে যে আবেদন ফর্ম (কলেজে কাগজ জমা দিলে কলেজ আপনাকে স্টুডেন্ট কপিটা ফেরত দিবে এবং ঐটা আপনারে স্বযত্নে রাখতে হবে) সময় টি আছে ওটাতে ১টি পিন ও পাসোয়ার্ড আছে।ওটা দিয়ে জাবির ওয়েব সাইটে লগ ইন করলে Status - লাল রঙে Submit লেখা থাকবে। আর কলেজ আবেদন গ্রহন কররলে তা সবুজ রঙে Receive লেখা হয়ে যাবে।

প্রশ্নঃ আবেদন কলেজে জমা দিতে কতটাকা লাগবে?
উঃ ২৫০ টাকা।

প্রশ্নঃ ফর্মটা কলেজে জমা দিয়েছি মেসেজ আসছে বা আসেনি এখন কি ওটা বাতিল করা যাবে ?
উঃ না।

প্রশ্নঃ১ম মেরিটের রেজাল্ট কবে দিবে ?
উঃনোটিশ দিলে জানতে পারবেন।

প্রশ্নঃ রেজাল্ট দেখবো কিভাবে ?
উঃ রেজাল্ট মেসেজের মাধ্যমে জানতে মেসেজ অপশনে গিয়ে টাইপ করুন NU ATDG Roll পাঠিয়ে দিন 16222নম্বরে। এখনে আবেদন ফর্মের রোল নম্বর দিতে হবে।এবং এই একই পদ্ধতিতে মেধা ও রিলিজের আবেদনের ফলাফল দেখা যাবে।

প্রশ্নঃ আমার ১ম মেরিটে যদি চান্স না হয় ?
উঃ আবার ২য় মেরিট দিবে।কবে দিবে তাও সময় মত যানতে পারবেন।ক্লাশ শুরু হয়েছে তাতে টেনশনের কিছু নাই।

প্রশ্নঃ১ম মেরিটে চান্স পেয়েছি বাট ঐ সাবজেক্ট পছন্দ না । এখন কি হপে ?
উঃ১ম মেরিটে সুযোগ পেয়ে আপনি যদি ভর্তি না হন তবে আর আপনার রেজাল্ট ২য় মেরিটে দিবে না। আপনাকে রিলিজে আবেদন করা লাগবে।

প্রশ্নঃ আর যদি ২য় মেরিটেও সুযোগ পেয়ে ভর্তি না হই তবে কি আমার সিটটা থাকবে ?
উঃতখন আপনাকে রিলিজ স্লিপ তুলতে হবে।আর আপনার সিট থাকবে না।

প্রশ্নঃসুযোগ পাওয়ার পর কি করবো ?
উঃ সুযোগ পাওয়ার পর আপনাকে ১টি ফর্ম অনলাইন থেকে ডাউনলোড করত হবে। এই ফর্মটিতে আপনার থানা,বাবার নাম,মায়ের নাম,মোবাইল নাম্বর ইত্যাদি কিছু তথ্য দিতে হবে। এবং এটির ৩টি কপি নামাতে হবে।১টি বা দুটি হবে কলেজ কপি এবং আর ১টি হবে স্টুডেন্ট কপি। প্রশ্নঃমেরিট লিস্টে/১ম রিলিজে চান্স পেয়েছি। চূড়ান্ত ফর্ম ডাউনলোড করেছি তবে ভর্তি হতে চাইনা আমি কি ১ম রিলিজে/২য় রিলেজে আবেদন করতে পারবো '?
উঃ হ্যা।

প্রশ্নঃ মাইগ্রেশন কি ভাবে করবো ?
উঃ মাইগ্রেশন শুধু মাত্র ১ম ও ২য় মেরিটে সুযোগ প্রাপ্তরাই করতে পারবে।সুযোগ পাওয়ার পর যে ফর্মটি ডাউনলোড করতে যাবেন তখন দোকানদারকে বলবেন যে মাইগ্রেশন অপশনটা চালু রাখতে।

প্রশ্নঃ ' মাইগ্রেশন করলে কোন সাবজেক্ট পাবো বা কি নিয়ম এটার ?
উঃ ধরুন আপনি ৩টা কোর্সচ য়েজ করেছেন।এখন ৩ বা চার নাম্বারটা পেয়েছেন।মাইগ্রেশ করলে আপনি ২ বা ১ নম্বরটা পাবেন।আর ১নংটাই যদি আসে তবে আর মাইগ্রেশন হবে না।নিচ থেকে উপরে যায়।উপর থেকে নিচে আসে না। আর মাইগ্রেশন করলেই যে পাবেন এমনটা আমি বলতে পারবো না।এটা ভাগ্যের ব্যাপার।

প্রশ্নঃ ভর্তির সময় কি কি জমা দিতে হবে ?
উঃ ssc ও hsc এর মূল মার্কশীট, মূল রেজিঃ কার্ড,মূল প্রশংসা পত্র,২বা ৪বা ৬ কপি পাসর্পোট সাইজের ছবি,আবেদন ফর্ম,ডাউনলোড ফর্ম।এগুলোর আবার প্রত্যেকে ফটো কপি ২ বা ৪টি সেট। (কলেজ ভেদে)

প্রশ্নঃ ছবি যদি ভিন্ন ভিন্ন অর্থ আবেদনের সময় ১টা আর ভর্তির সময় অন্যটা দিলে সমস্যা আছে ? উঃ না।

প্রশ্নঃ ১ম ও ২য় মেরিটে চান্স পাইনি এখন কি করবো ? উঃ রিলিজ স্লিপ তুলবেন।

প্রশ্নঃ রিলিজ স্লিপ কি ? খায় নাকি মাথায় দেয় ?
উঃযারা ১ম ও ২য় মেরেটি চান্স পায় না বা পেয়েও ভর্তি হয়না তারা আবার রিলিজ স্লিপে আবেদন করবে।
[ বিঃদ্রঃ যারা প্রাথমিক আবেদন করে নাই আবার আবেদন করছে ব্যাংকে টাকা জমা দিছে তবে ফর্ম কলেজে জমা দেয় নি তার রিলিজে আবেদন করতে পারবে না, আর সেই বছর লস্ যাবে ।]

প্রশ্নঃ রিলিজে কয়টা কলেজ আবেদন করা যাবে ?
উঃ ৫টা আপনার ইচ্ছা মত।এমনি প্রাথমিক আবেদন যে কলেজে করেছেন ওটাতেও।

প্রশ্নঃ কতটি বিষয় চয়েস দেয়া যাবে ?
# যা সো করবে সব
উঃ যে কয়টা প্রদর্শিত হবে সব। চাইলে ১টাও।

প্রশ্নঃরিলিজ স্লিপে আবেদনের সময় কি কিছু লাগবে ?
উঃ না।আপনার প্রাথমিক আবেদন ফর্মটাতে পিন ও রোল দোকানদারকে দিবেন বাকিটা উনাদের কাজ।

প্রশ্নঃ রিলিজ ফর্মটা কি আবার কলেজে জমা দিতে হবে ?
উঃ না। কিছু করতে হবে না।বাসায় এনে যত্ন করে রেখে দিবেন। আর কোন টাকাও দেয়া লাগবে না কলেজে।

প্রশ্নঃ চান্স পেলে কি করবো?
উঃ উপরের দেয়া আছে কি কি কাগজ লাগবে।

প্রশ্নঃ রিলিজে চান্স পাইলে কি মাইগ্রেশ করা যাবে ? বা কলেজে পরে সাবজেক্ট পরিবর্তন করার কোনো নোটিশ দিবে ?
উঃ না না এবং না।

প্রশ্নঃযদি ১ম রিলিজে ভর্তি না হই ?
উঃ তবে ২য় রিলিজে আবেদন করবেন ঠিক ১ম রিলিজে যেভাবে আবেদন করেছেন। কিন্তু ২য় রিলিজে সিট খালি থাকা সাপেক্ষে দিবে।আবার ৩য় রিলিজের আশায় কেউ থাইকেন না। প্রশ্নঃ রিলিজ ফর্ম টা ভুল বা মত পরিবর্তন করি তাহলে নতুন আবেদন করতে পারবো ?
উঃ হ্যা ।তবে মাত্র ১বার।

প্রশ্নঃ কিভাবে করবো ?
উঃ দোকানদারকে বল্লেই হবে। যে সকল ওস্তাদি নিজ থেকে করবেন না। ফোন বা স্মার্ট ফোন থেকে আবেদন বা রিলিজ ফর্ম পূরন করতে যাবেনা।ফোনে সাবমিট করতে প্রচুর সময় লাগে সাথে আপনারা এটা জানেনো না।তাই ওস্তাদি করতে যায়া আবার বিপদ ডাকবেন না।

প্রশ্নঃ আবেদনের রেজাল্ট কবে দিবে ?
উঃ ১ম ও ২য় মেরিট,কোটা,১ম রিলিজ, ২য় রিলিজ প্রত্যেকটার রেজাল্ট আবেদনের শেষ সময় থেকে ১ থেকে ৭ দিনের মধ্যে দিয়ে থাকে।এবং পর্যায়ক্রমে ১টি ফলাফল প্রাকাশ ও ভর্তি শেষ হলে পরেরটির জন্য নোটিশ দেয়।কোনো ভাবেই একটি কার্যক্রম চলাকালীন অপরটির আবেদন সংক্রান্ত নোটিশ প্রকাশ করা হয় না।



নিয়মিত এমন পোস্ট আরো পেতে এবং জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় সংক্রান্ত সকল ধরনের তথ্য পেতে আমাদের সাথেই থাকুন।
বিঃদ্রঃ বর্তমানে ভর্তি নিয়মটা একই থাকবে। তাই শেয়ার করে রাখতে পারেন।
Previous Post
Next Post

post written by:

0 Comments: